বাংলাদেশ সংবিধান

বাংলাদেশ সংবিধান

বাংলাদেশ সংবিধান

সংবিধান প্রণয়নঃ

সংবিধান একটি রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ দলিল। এই দলিল লিখিত বা অলিখিত হতে পারে। বাংলাদেশের সংবিধান একটি লিখিত দলিল। দীর্ঘ সংগ্রাম, ত্যাগ আর রক্তের বিনিময়ে বাংলাদেশের জনগণ এই সংবিধান লাভ করে। মাত্র নয় মাসে সদিচ্ছা, আন্তরিকতা আর জনগণের কাছে দেওয়া প্রতিশ্রুতির প্রতি সৎ থেকে সংক্ষিপ্ততম সময়ে বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ সংবিধান প্রণীত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর সরকারের নেতৃত্বে।যা দেশ পুনর্গঠনে সবচেয়ে জরুরি পদক্ষেপ ছিল।

সংবিধান এর বৈশিষ্ট্যঃ

  1. লিখিত সংবিধানঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধান একটি লিখিত সংবিধান।
  2. দুষ্পরিবর্তনীয় সংবিধানঃ ৪৪২ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সংসদের মোট সদস্যের দুই-তৃতীয়াংশ ভোটেই কেবল সংবিধানের কোন বিধান পরিবর্তন করা যাবে।
  3. প্রস্তাবনাঃ বাংলাদেশের সংবিধান একটি প্রস্তাবনা দিয়ে শুরু হয়েছে। ইহাকে সংবিধানের Guiding star বলা হয়।
  4. সংবিধানের প্রাধান্যঃ বাংলাদেশের সংবিধানে সংবিধানের প্রাধান্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। কারণ ৭(২) নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে যে, এই সংবিধান প্রজাতন্ত্রের সর্বোচ্চ আইন এবং অন্য কোন আইন যদি এ সংবিধানের সাথে অসামঞ্জস্য হয় তাহলে যতখানি অসামঞ্জস্যপূর্ণ হবে ততখানি বাতিল বলে গণ্য হবে।
  5. এককেন্দ্রীক শাসনব্যবস্থাঃ বাংলাদেশ একটি এককেন্দ্রীক গণপ্রজাতান্ত্রিক রাষ্ট্র হবে। তবে স্থানীয় সরকার কেন্দ্রী সরকারের এজেন্ট হিসেবে কাজ করে।
  6. এক কক্ষ বিশিষ্ট আইন পরিষদঃ ৬৫ নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বাংলাদেশের একটি এক কক্ষ বিশিষ্ট আইন পরিষদের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আইনসভার নাম ‘জাতীয় সংসদ’।
  7. সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রের মূলনীতি – ৪টিঃ ১। ধর্মনিরপেক্ষতা, ২। জাতীয়তাবাদ, ৩। গণতন্ত্র, ৪। সমাজতন্ত্র।
  8. মৌলিক অধিকারঃ সংবিধানের তৃতীয় ভাগে মোট ১৮টি মৌলিক অধিকার সন্নিবেশ করা হয়েছে। এ অধিকারগুলোর অভিভাবক ও সংরক্ষণকারী হলো সুপ্রীম কোর্ট।
  9. মন্ত্রী পরিষদ শাসিত সরকার ব্যবস্থাঃ মন্ত্রী পরিষদ শাসীত সরকার বলতে এমন এক ধরনের শাসন ব্যবস্থাকে বোঝায় যেখানে দেশের শাসন সংক্রান্ত যাবতীয় ক্ষমতা এক দল মন্ত্রী পরিষদের হাতে ন্যস্ত থাকে।
  10.  বিচার বিভাগীয় স্বাধীনতাঃ  সংবিধানের ২২ নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে রাষ্ট্র নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথকীকরনে সচেষ্ট হবে।
  11. ন্যায়পালঃ  সংবিধানের ৭৭ নং অনুচ্ছেদে বাংলাদেশে একটি ন্যায়পালের সৃষ্টি হয়েছে।
  12. বাংলাদেশ সংবিধানের প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো ১২ টি।
সংবিধানের ভাগ
ভাগ বিষয় ধারা নং সংখ্যা
প্রথম প্রজাতন্ত্র ১-৭ ৭টি
দ্বিতীয় রাষ্ট্রপরিচালনার মূলনীতি ৮-২৫ ১৮টি
তৃতীয় মৌলিক অধিকার ২৬-৪৭ ১৮টি
চতুর্থ নির্বাহী বিভাগ ৪৮-৬৪ ১৭টি
পঞ্চম আইনসভা ৬৫-৯৩ ২৯টি
ষষ্ঠ বিচার বিভাগ ৯৪-১১৭ ২৩টি
সপ্তম নির্বাচন ১১৮-১২৬ ৯টি
অষ্টম মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক ১২৭-১৩২ ৬টি
নবম (ক) বাংলাদেশের কর্ম বিভাগ ১৩৩-১৪১ ৯টি
নবম (খ) জরুরী বিধানাবলী ১৪১ ক, ১৪১ গ ৯টি
দশম সংবিধান সংশোধন ১৪২ ১টি
একাদশ বিবিধ ১৪৩-১৫৩ ১১টি

সংবিধান থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্যঃ

  1. বাংলাদেশের সাংবিধানিক নাম → গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ।
  2. বাংলাদেশের সংবিধান → লিখিত সংবিধান।
  3. সংবিধান রচনার প্রথম পদক্ষেপ → গণপরিষদে আদেশ জারি।
  4. সংবিধান রচনা কমিটির একমাত্র বিরোধী সদস্য → সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত।
  5. সংবিধান রচনা কমিটির একমাত্র মহিলা সদস্য → বেগম রাজিয়া বানু।
  6. গণপরিষদে খসড়া সংবিধান গৃহীত ও কার্যকরী হয় → ৪ নভেম্বর, ১৯৭২ সালে।
  7. সংবিধানে ভাগ রয়েছে ১১টি এবং অনুচ্ছেদ রয়েছে → ১৫৩ টি।
  8. বাংলাদেশ সংবিধান থেকে উঠিয়ে দেয়া হয় → ১২ নং ধারাটি, ধর্ম নিরপেক্ষতা।
  9. জাতীয় সংসদ ভবনে প্রথম অধিবেশন বসে → ১৫ই ফেব্রুয়ারি ১৯৮২ সালে।
  10. বাংলাদেশের রাষ্ট্র প্রধান → রাষ্ট্রপতি।
  11. বাংলাদেশের সরকার প্রধান → প্রধানমন্ত্রী।
  12. বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় কার্যক্রম চলে → রাষ্ট্রপতির নামে।
  13. জাতীয় সংসদের ১নং আসন → পঞ্চগড় এবং ৩০০ নং আসন → বান্দরবান।
  14. সংসদে ফ্লোর ক্রসিং বলে → অন্য দলে যোগ দিলে বা নিজ দলের বিপক্ষে ভোট দিলে।
  15. বাংলাদেশে স্বল্পকালীন সংসদ  → ষষ্ঠ সংসদ।
  16. বাংলাদেশে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয় → ৩ বার (১৯৭৮, ১৯৮১, ১৯৮৬ সালে)।
  17. বাংলাদেশে গণভোট হয় → ৩ বার (১৯৭৭, ১৯৮৫, ১৯৯১ সালে)।
  18. বিভাগের প্রশাসনিক প্রধান → কমিশনার।
  19. জেলার প্রশাসনিক প্রধান → ডেপুটি কমিশনার।
  20. ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য → ১৩ জন (১ জন চেয়ারম্যান, ৯ জন সদস্য এবং ৩ জন মহিলা সদস্য)।
  21. আপিল বিভাগে বিচারপতি → ১১ জন।
  22. বিমান বাহিনীর শ্লোগান → ‘বাংলার আকাশ রাখিব মুক্ত’।
  23. বিমান বাহিনীর ট্রেনিং সেন্টার → যশোরে।
  24. বাংলাদেশের প্রথম মহিলা ব্রিগেডিয়ার → সুরাইয়া বেগম।
  25. স্থানীয় সরকারের ৩টি  স্তর হচ্ছে → ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ ও জেলা পরিষদ।
  26. গ্রাম সরকার ব্যবস্থার প্রবর্তক → রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান।
  27. উপজেলা ব্যবস্থার প্রবর্তক → হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।
  28. বর্তমানে জেলা পরিষদের সংখ্যা → ৬৪টি।
  29. বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান → রাষ্ট্রপতি।
  30. বাংলাদেশের প্রথম প্রধান সেনাপতি → জেনারেল এম. এ. জি. ওসমানী।
  31. সশস্ত্রবাহিনী দিবস পালিত হয় → ২১ শে নভেম্বর।
  32. বাংলাদেশ সামরিক জাদুঘর অবস্থিত → ঢাকা সেনানিবাসে।
  33. বাংলাদেশে প্রথম সামরিক আইন জারি হয় → ১৯৭৫ সালে।
  34. বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সর্বোচ্চ পদ → ফিল্ড মার্শাল।
  35. সারদা পুলিশ একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয় → ১৯১২ সালে পদ্মা নদীর তীরে।
  36. সরকারি কর্ম কমিশন প্রধানের পদবি → চেয়ারম্যান।
  37. সরকারি কর্ম কমিশনের চেয়ারম্যান ও সদস্যবৃন্দকে নিয়োগ দান করেন → রাষ্ট্রপতি।
  38. বাংলাদেশ সংবিধানের নির্বাচন কমিশন প্রতিষ্ঠা বিষয়ক বিধান রয়েছে → ১১৮ নং অনুচ্ছেদে।
  39. নির্বাচন কমিশনারের পদের মেয়াদ → ৫ বছর।
  40. সংবিধানের ভোটার তালিকার বিধান বর্ণিত আছে → ১২১ নং অনুচ্ছেদে।
  41. বাংলাদেশে প্রথম ভোটার তালিকা প্রণয়ন করা হয় → ৩০ জানুয়ারি, ১৯৭৩ সালে।
  42. স্বাধীন দুর্নীতি দমন কমিশন গঠিত হয় → ২১-এ নভেম্বর ২০০৪।
  43. স্বাধীন দুর্নীতি দমন কমিশন → ৩ সদস্য বিশিষ্ট (১ জন চেয়ারম্যান ও ২ জন সদস্য)।
  44. স্বাধীন দুর্নীতি দমন কমিশনের মেয়াদকাল → ৪ বছর।
  45. স্বাধীন দুর্নীতি দমন কমিশনের কার্যালয় অবস্থিত → ঢাকার সেগুনবাগিচায়।
  46. বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি → বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান।
  47. বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন → জাতীয় সংসদ সদস্যদের ভোটে।
  48. প্রধান বিচারপতি এবং আপিল বিভাগে নিযুক্ত বিচারকদের নিয়ে গঠিত হয় → আপিল বিভাগ।
  49. গণপরিষদের সংবিধান প্রণয়ন কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন → ড. কামাল হোসেন।
  50. স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধান রচনার জন্যে কমিটি গঠিত হয়েছিল → ৩৪ সদস্যবিশিষ্ট।
  51. বাংলাদেশের সংবিধান থেকে ‘ধর্ম নিরপেক্ষতা’ বাদ দেন → প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান।
  52. নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য কমিশনারদের নিয়োগ দেন → রাষ্ট্রপতি।
  53. নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠিত হয় → সংবিধানের ত্রয়োদশ সংশোধনী অনুসারে।
  54. তত্ত্বাবধায়ক সরকার যৌথভাবে দায়ী থাকেন → রাষ্ট্রপতির নিকট।
  55. সংসদ ভেঙ্গে দেয়ার পর প্রধান উপদেষ্টা ও অন্যান্য উপদেষ্টা নিযুক্ত হবেন → ১৫ দিনের মধ্যে।

বাংলাদেশ সংবিধানের ১৭ টি সংশোধনী

সংশোধনী সংশোধনীর বিষয়বস্তু
প্রথম সংশোধনী যুদ্ধাপরাধীসহ অন্যান্য গণবিরোধীদের বিচারের বিধান নিশ্চিত করা
দ্বিতীয় সংশোধনী অভ্যান্তরীণ বা বহিরাক্রমণ গোলযোগে দেশের নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক জীবন বিপন্ন হলে সে অবস্থায় ‘জরুরী অবস্থা’ ঘোষণার বিধান
তৃতীয় সংশোধনী চুক্তি অনুযায়ী বেরুবাড়িকে ভারতের নিকট হস্তান্তরের বিধান
চতুর্থ সংশোধনী সংসদীয় শাসন পদ্ধতির পরিবর্তে রাষ্ট্রপতি শাসিত শাসন পদ্ধতি চালুকরণ এবং বহুদলীয় রাজনীতির পরিবর্তে একদলীয় রাজনীতি প্রবর্তন
পঞ্চম সংশোধনী ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টের সামরিক অভ্যুত্থানের পর হতে ১৯৭৯ সালের ৯ই এপ্রিল পযর্ন্ত সামরিক সরকারের যাবতীয় কর্মকাণ্ডের, ফরমানের ও প্রবিধানের বৈধতা দান
ষষ্ঠ সংশোধনী উপরাষ্ট্রপতি পদ হতে রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচনের বিধান নিশ্চিতকরণ
সপ্তম সংশোধনী ১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ তারিখের ফরমান ও উক্ত ফরমান দ্বারা ঘোষিত সামরিক আইন বলবৎ থাকাকালীন সময়ে প্রণীত সকল ফরমান, প্রধান সামরিক আইন প্রশাসকের আদেশ, নির্দেশ, অধ্যাদেশসহ অন্যান্য আইন অনুমোদন
অষ্টম সংশোধনী রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে ইসলামকে স্বীকৃতি দান এবং ঢাকার বাহিরে ছয়টি জেলায় হাইকোর্টের স্থায়ী বেঞ্চ স্থাপন
নবম সংশোধনী রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সংগে একই সময়ে উপরাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠান করা, রাষ্ট্রপতি পদে কোনো ব্যক্তি পর পর দুই মেয়াদে সীমাবদ্ধ রাখা
দশম সংশোধনী প্রেসিডেন্ট কার্যকালের মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্বে ১৮০ দিনের মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ব্যাপারে সংবিধানের বাংলা ভাষ্য সংশোধন ও সংসদে মহিলাদের ৩০টি আসন আরও ১০ বৎসরকালের জন্যে সংরক্ষণ
একাদশ সংশোধনী অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি বিচারপতি শাহাবুদ্দীন আহমদের স্বপদে ফিরে যাবার বিধান
দ্বাদশ সংশোধনী সংসদীয় পদ্ধতির সরকার প্রবর্তন
ত্রয়োদশ সংশোধনী অবাধ, সুষ্ঠু সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্যে নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন
চতুর্দশ সংশোধনী সংসদে নারী আসন, প্রধান বিচারপতি, নির্বাচন কমিশনার, প্রধান হিসাব নিরীক্ষীদের অব

সর বয়সসীমা বৃদ্ধি ও অর্থবিল

পঞ্চদশ সংশোধনী প্রস্তাবনার সংশোধন, ’৭২-এর মলনীতি পুনর্বহাল, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বিলুপ্ত, নারীদের জন্য ৫০ আসন সংরক্ষন, ইসির ক্ষমতা বৃদ্ধি ইত্যাদি
ষোড়শ সংশোধনী বাংলাদেশ সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদে বিচার পতিদের অভিশংসন ক্ষমতা সংসদের হাতে ন্যস্ত করা হয়
সপ্তদশ সংশোধনী একাদশ জাতীয় সংসদে প্রথম বৈঠকের তারিখ হতে শুরু কওে ২৫ বছর সময় অবিবাহিত হওযার অব্যবহিত পরবর্তী সময়ে সংসদ ভেঙ্গে না যাওয়া পর্যন্ত ৫০ টি আসন নারীদের জন্য সংরক্ষিত থাকবে।

BCS Written Exam

বাংলাদেশ সংবিধানের গুরুত্বপূর্ণ অনুচ্ছেদ সমূহ

অনুচ্ছেদ অনুচ্ছেদের বিষয়বস্তু
২ক অনুচ্ছেদ রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম
৩ অনুচ্ছেদ রাষ্ট্রভাষা বাংলা
৪ অনুচ্ছেদ জাতীয় সঙ্গীত, পতাকা ও প্রতীক
৬(২) অনুচ্ছেদ ‘বাংলাদেশী’ বলে পরিচিতি
৮ অনুচ্ছেদ মূলনীতি সমূহ
১১ অনুচ্ছেদ গণতন্ত্র ও মৌলিক মানবাধিকার
১৪ অনুচ্ছেদ কৃষক ও শ্রমিক
২৮ (২) অনুচ্ছেদ নারী ও পুরুষের সমান অধিকার
৩১ অনুচ্ছেদ আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার
৩২ অনুচ্ছেদ জীবন ও ব্যক্তি স্বাধীনতা
৩৩ অনুচ্ছেদ গ্রেফতার ও আটক
৩৬ অনুচ্ছেদ চলাফেরার স্বাধীনতা
৩৭ অনুচ্ছেদ সমাবেশের স্বাধীনতা
১৭ অনুচ্ছেদ অবৈতনিক ও বাধ্যতামলক শিক্ষা
২২ অনুচ্ছেদ নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগের পৃথকীকরণ
৪১ অনুচ্ছেদ ধর্মীয় স্বাধীনতা
৫১ অনুচ্ছেদ রাষ্ট্রপতির দায়মুক্তি
৫২ অনুচ্ছেদ রাষ্ট্রপতির অভিশংসন
৫৮ (খ) অনুচ্ছেদ নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার
৬৪ অনুচ্ছেদ এ্যাটর্নি জেনারেল
৭৭ অনুচ্ছেদ ন্যায়পাল
৮১ অনুচ্ছেদ অর্থবিল
৯৪ অনুচ্ছেদ সুপ্রিম কোর্ট প্রতিষ্ঠা
৯৫ অনুচ্ছেদ বিচারক নিয়োগ
১১৭ অনুচ্ছেদ প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনাল
১১৮ অনুচ্ছেদ নির্বাচন কমিশন প্রতিষ্ঠা
১২৭ অনুচ্ছেদ মহা হিসাব নিরীক্ষক পদের প্রতিষ্ঠা
১৩৭ অনুচ্ছেদ সরকারি কর্ম-কমিশন
১৪১ (ক) অনুচ্ছেদ জরুরী অবস্থা ঘোষণা
১৪২ অনুচ্ছেদ সংবিধান সংশোধন

ভাষা আন্দোলন মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক প্রামাণ্য চলচ্চিত্র ও গ্রন্থ

সংবিধানের গুরুত্বপূর্ণ অনুচ্ছেদ সমূহ অনুশীলন

বিষয় অনুচ্ছেদ নং
রাষ্ট্র ধর্ম ২ (ক)
রাষ্ট্র ভাষা
জাতীয় সংগীত, পতাকা ও প্রতীক
জাতির পিতার প্রতিকৃতি ৪ (ক)
প্রজাতন্ত্রের রাজধানী ৫ (১)
জাতি হিসেবে বাঙ্গালী এবং নাগরিক হিসেবে বাংলাদেশী ৬ (২)
রাষ্ট্রপরিচালনায় মূলনীতি
জাতীয় জীবনে মহিলাদের অংশগ্রহণ ১০
গণতন্ত্র ও মানবাধিকার ১১
ধর্মনিরপেক্ষতা [পুনঃসংযোগজন] ১২
অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক শিক্ষা ১৭
সুযোগের সমতা ১৯
নির্বাহী বিভাগ হতে বিচার বিভাগের পৃথকীকরণ ২২
মৌলিক অধিকারের সাথে অসমাঞ্জস্য আইন বাতিল ২৬
আইনের দৃষ্টিতে সমতা ২৭
নারী পুরুষের সমান অধিকার ২৮ (২)
সরকারী কর্মে নিয়োগলাভে সুযোগের সমতা ২৯
আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার ৩১
নির্বাচন কমিশন প্রতিষ্ঠা ৯৪
প্রধান বিচারপতি নিয়োগ ৯৫
প্রশাসনিক ট্রাইবুন্যাল ১১৭
ভোটার তালিকা ১১৯
বিষয় অনুচ্ছেদ নং
সমাবেশের স্বাধীনতা ৩৭
সংগঠনের স্বাধীনতা ৩৮
চিন্তা, বিবেক বা বাক্-স্বাধীনতা ৩৯
সংবাদপত্রের স্বাধীনতা ৩৯(১)
ধর্মীয় স্বাধীনতা ৪১
যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সংক্রান্ত ৪৭ (ক)
রাষ্ট্রপতির ক্ষমা প্রদর্শনের অধিকার ৪৯
রাষ্ট্রপতির দায়মুক্তি ৫১
রাষ্ট্রপতির অভিশংসন ৫২
রাষ্ট্রপতি কর্তৃক প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রী নিয়োগ ৫৬(২)
স্থানীয় সরকার ৫৯
সংরক্ষিত নারী আসন ৬৫(ক)
ফ্লোর ক্রসিং ৭০
ন্যায়পাল ৭৭
রাষ্ট্রপতির অধ্যাদেশ প্রণয়ন-ক্ষমতা ৯৩
সুপ্রীম কোর্ট প্রতিষ্ঠা ৯৪
প্রধান বিচারপতি নিয়োগ ৯৫
প্রশাসনিক ট্রাইবুনাল ১১৭
মহা হিসাব-নিরীক্ষক ১২৭
জরুরী অবস্থা ঘোষণা ১৪১(ক)
সংবিধানের বিধান সংশোধনের ক্ষমতা ১৪২
আন্তর্জাতিক চুক্তি ১৪৫(ক)

 

Online MCQ Exam Constitution of Bangladesh

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *