বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস-মধ্য যুগ

মধ্যযুগ (১২০১-১৮০০)



বাংলা সাহিত্যের জ্ঞান আর তত্ত্বের মিলিত অবস্থানস্থল হলো এই মধ্যযুগ। বাংলা সাহিত্যে হিন্দুয়ানিই বলি আর মুসলমানত্বই বলি সব কিছুর সৃষ্টি এই মধ্যযুগে।মধ্যযুগের আদি নিদর্শন কোনটি? →শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য।

শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য



  • মধ্যযুগের প্রথম গ্রন্থের নাম → শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য।
  • সর্বজন স্বীকৃত ও খাঁটি বাংলা ভাষায় রচিত প্রথম কাব্যগ্রন্থ → শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যগ্রন্থ।
  • কাব্যটির প্রকৃত নাম → শ্রীকৃষ্ণসন্দর্ভ।
  • কৃষ্ণকীর্তন কাব্য কে, কখন, কীভাবে আবিষ্কার করেন?→বসন্ত রঞ্জন রায় ১৯০৯ সালে পশ্চিম বঙ্গের বাঁকুড়া জেলার কাকিল্যা গ্রামের এক গৃহস্থের গোয়াল ঘর থেকে। পরে ১৯১৬ সালে কলকাতার বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ থেকে প্রকাশিত হয়।
  • এ কাব্যের প্রধান তিনটি চরিত্র হচ্ছে-রাধা,কৃষ্ণ ও বড়াই।
  • কৃষ্ণকীর্তন কাব্যগ্রন্থের কবি কে? →বড়– চন্ডীদাস।
  • কৃষ্ণকীর্তন কাব্য কয় খন্ডের? →১৩ খন্ডের।
  • কাব্যটির মূল বিষয় বস্তু হলো → রাধাকৃষ্ণের প্রেমলীলা।

মঙ্গলকাব্য



  1. ০১। মঙ্গলকাব্যের প্রাচীনতম ধারা কোনটি ?
  2. উ: মনসামঙ্গল
  3. ০২। মনসামঙ্গল কাব্যের আদি রচিয়তা কে ?
  4. উ: কানা হরিদত্ত
  5. ০৩। কালিকা মঙ্গল কাব্যের আদি কবি কে ?
  6. উ: মুকুন্দরাম চক্রবর্তী
  7. ০৪। মনসামঙ্গল কাব্যের আলোচ্য চরিত্রগুলো কী কী ?
  8. উ: মনসা দেবী, চাঁদ সওদাগর, বেহুলা ও
  9. কেতকা দেবী।
  10. ০৫। ‘অন্নদামঙ্গল’ ও ‘সত্যপীরের পাঁচালি’ কার রচনা?
  11. উ: ভারতচন্দ্র রায় গুণাকর
  12. ০৬। কোন কবির মাধ্যমে মধ্যযুগের অবসান ঘটে?
  13. উ: ভারতচন্দ্র রায় গুণাকর

আরাকান রাজসভায় বাংলা সাহিত্য



বাংলা সাহিত্য চর্চার প্রাণ কেন্দ্র আরাকান। আরাকান রাজ সভার আরেক নাম হলো রোসাঙ্গ রাজসভা। ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী কিন্তু কবিতা বা সাহিত্য লিখার জন্য রাজধানীর প্রয়োজন হয় না। বর্তমান মায়ানমার এবং চট্টগ্রামের কিছু অংশ নিয়ে আরাকান বা রোসাঙ্গ রাজসভার অবস্থান। সেখানে আরাকান রাজসভার তত্ত¡¡াবধানে বাংলা সাহিত্যের বেশ কিছু গ্রন্থ অনুবাদ করা হয়।

  1. ০১।  আরাকান রাজসভার আরেক নাম কী ছিল ?
  2. উ: রোসাঙ্গ রাজসভা
  3. ০২।  আরাকান রাজসভার প্রধানমন্ত্রীর নাম কী ছিল ?
  4. উ: কোরেশী মাগন ঠাকুর
  5. ০৩।  আলাওলের মৌলিক গ্রন্থ কোনটি ?
  6. উ: সতীময়না লোর-চন্দ্রানী
  7. ০৪।  দৌলত কাজী কী রচনা শেষ না করে মারা যান ?
  8. উ: সতীময়না লোর-চন্দ্রানী

মহাকাব্য



  • পৃথিবীতে মোট জাত মহাকাব্য → ৪টি
  • পৃথিবীতে মোট জাত মহাকাব্য কী কী →রামায়ণ, মহাভারত, ইলিয়ড এবং ওডেসি।
  • রামায়ণের রচয়িতা → বাল্মীকি
  • রামায়ণের জনপ্রিয় অনুবাদক → কৃত্তিবাস  ওঝাঁ
  • মহাভারতের রচয়িতা → কৃষ্ণদ্বৈপায়ন
  • মহাভারতের জনপ্রিয় অনুবাদক → কাশীরাম দাস
  • ইলিয়ড এবং ওডেসি এর লেখক → হোমার

অনুবাদ সাহিত্য



অন্যদেশের কবি সাহিত্যিকরা যা লিখেছেন সে সমস্ত কাব্য বা গ্রন্থের ভাষান্তর করার নামই হলো অনুবাদ। মধ্যযুগের অনুবাদ সাহিত্য ছিল বিরাট শক্তিশালী।

  1. ০১।  কোন কবির মাধ্যমে অনুবাদ সাহিত্য যাত্রা শুরু করে?
  2. উ: কবি কৃত্তিবাস।
  3. ০২। ‘রামায়ণ’ কে অনুবাদ করেন?
  4. উ: কবি কৃত্তিবাস।
  5. ০৩। ‘রামায়ণ’ এর প্রথম মহিলা অনুবাদকারী কে?
  6. উ: চন্দ্রবতী।
  7. ০৪। ‘মহাভারতের’ আদি অনুবাদক কে?
  8. উ: কবীন্দ্র পরমেশ্বর।
  9. ০৫। আলাওলের শ্রেষ্ঠ সাহিত্যে কোনটি ?
  10. উ: পদ্মাবতী
  11. ০৬। বাংলায় কুরআন শরীফের প্রথম অনুবাদক ?
  12. উ: ভাই গিরিশচন্দ্র সেন।

রোমান্সমূলক কাব্য



মানুষের প্রতি মানুষের বা নারী ও পুরুষের ভাললাগার ইতিহাসকে কাব্যের মাধ্যমে বলাই রোমান্সমূলক কাব্য। মূলত ব্যক্তিগত  ভাললাগা বোধকেই এর মাধ্যমে জাগ্রত করা হয়।

  1. ০১।  মধ্যযুগে স্বাতন্ত্র ধারায় রচিত অনুবাদ সাহিত্য কোনটি?
  2. উ: রোমান্টিক প্রণয়োপাখ্যান।
  3. ০২। রোমান্টিক প্রণয়োপাখ্যানগুলো কোন ভাষা উৎস থেকে আগত?
  4. উ: ফারসি ও হিন্দি।
  5. ০৩। মুসলিম রোমান্টিক কবি কারা ?
  6. উ: শাহ মুহাম্মদ সগীর, দৌলত উজীর বাহারাম খাঁন, আলাওল।
  7. ০৪। বাংলা সাহিত্যে প্রচীনতম মুসলিম কবি কে ?
  8. উ: শাহ মুহম্মদ সগীর।

রোমান্টিক প্রণয়োপাখ্যান



বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে মধ্যযুগ একটি গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায়। এ যুগে মুসলিম কবিদের সবচেয়ে বড় অবদান রোমান্টিক প্রণয়োপাখ্যান। মুসলিম কবিগণ মানবহৃদয়বৃত্তি, প্রেম-সৌন্দর্য, প্রেম-প্রীতি, চিত্তবিলাস ও মানস সম্ভোগের যে লীলা প্রকাশ করেছেন, তাই রোমান্টিক প্রণয়োপাখ্যান নামে পরিচিত। প্রণয়োপাখ্যানে পৌরাণিক ঐতিহাসিক লৌকিক রাজ-রাজাদের কাহিনী থাকলেও সেখানে প্রধান অবদান মানবপ্রেম। এগুলোতে ধর্ম নেই, জীবন আছে। সুখ-দুঃখ, বিরহ মিলনপূর্ণ মানব জীবনের কথা লৌকিক ও অলৌকিক উপাদানের সাথে মিশ্রিত হয়ে আনন্দ রসের নতুন ভুবন রচনা করেছেন। বাংলার মুসলমান কবিরা ভারত ও পারস্যের সুফী কবিদের কাব্যের অনুবাদ করে এ ধারাটি গড়ে তুলেছেন।

 

নিম্নে কয়েকটি প্রণয়োপাখ্যানের পরিচয় তুলে ধরা হলোঃ

  • কবিদের নাম                       গ্রন্থের নাম                         রচনাকাল
  • মহাকবি আলাওল                 পদ্মাবতী                           সতেরো শতক
  • শাহ মুহাম্মদ সগীর                ইউসুফ জোলেখা               পনেরো শতক
  • দৌলত উজির বাহরাম খাঁ     লাইলী মজনু                      ষোল শতক
  • কোরেশী মাগন ঠাকুর            চন্দ্রাবতী                          সতেরো শতক
  • দৌলত কাজী                        সতীময়না লোর-চন্দ্রানী     সতেরো শতক

অন্যান্য তথ্য সমূহ



  • মঙ্গলকাব্যের প্রধান কয়টি শাখা? →৩টি, মনসামঙ্গল (কবি কানা হরি দত্ত), চন্ডীমঙ্গল (কবি মানিক দত্ত), অন্নদামঙ্গল (ভারতচন্দ্র রায়)
  • কালিকামঙ্গলের আদি কবি কে? →কবি কঙ্ক
  • আরাকান বা রোসাঙ্গ রাজ সভার কবি ছিলেন? →আলাওল।
  • বাংলা সাহিত্যে প্রাচীনতম মুসলিম কবি কে? →শাহ মুহাম্মদ সগীর (ইউসুফ জোলেখার রচয়িতা)
  • পুঁথি সাহিত্যের সার্থক ও জনপ্রিয় কবি হচ্ছেন→ফকির গরীবুল­াহ।
  • মহুয়া গীতিকার রচয়িতা→মনসুর বয়াতি।
  • ঠাকুরমার ঝুলি এর রচয়িতা→দক্ষিণারঞ্জন মিত্র মজুমদার।
  • পৃথিবীতে কয়টি জাত মহাকাব্য আছে?→৪টি (রামায়ণ, মহাভারত, ইলিয়াড ওডেসি)
  • মহাভারত কোন ভাষায় লেখা, লেখক কে?→সংস্কৃত ভাষায়, লেখক ব্যাসদেব।
  • মহাভারত প্রথম বাংলায় অনুবাদ করেন→কবীন্দ্র পরমেশ্বর।
  • রামায়ণ কার লেখা এবং প্রথম অনুবাদক কে?→সংস্কৃত ভাষায় বাল্মীকির, কৃত্তিবাস ওঝার।
  • “লায়লী মজনু ”কাব্যের রচয়িতা কে? → দৌলত উজির বাহরাম খান।
  • চন্দ্রাবতী ও পদ্মাবতী কাব্যের রচয়িতা কে?→কোরেশী মাগন ঠাকুর,ও পদ্মাবতী   আলাওল।
  • দেওয়ানা মদীনা এর লেখক কে? →মনসুর বয়াতি।
  • কোন কবির মাধ্যমে মধ্যযুগের অবসান ঘটে?→ ভারত চন্দ্র রায় গুনাকর।
  • ধর্মমঙ্গল কাব্যের আদি কবি কে?→ময়ূর ভট্ট।
  • কোন কবির মাধ্যমে অনুবাদ সাহিত্যের যাত্রা শুরু হয়?→কবি কৃত্তিবাস।
  • লোক সাহিত্যের প্রাচীনতম সৃষ্টি কী কী?→ছড়া ও ধাঁধা।
  • আলাওল কোন যুগের কবি?→মধ্যযুগের।

বিগত সালের প্রশ্ন



  • প্রশ্নঃ   মধ্যযুগের আদি নিদর্শন কোনটি ?
  • শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য।
  • প্রশ্নঃ   শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য কে, কখন, কীভাবে আবিষ্কার করেন?
  • বসন্তরঞ্জন রায় ১৯০৯ সালে পশ্চিম বঙ্গের বাঁকুড়া জেলার কাকিল্যা গ্রামের এক গৃহস্থের গোয়াল ঘর থেকে। পরে ১৯১৬ সালে কলকাতার বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ থেকে প্রকাশিত হয়। এ কাব্যের প্রধান তিনটি চরিত্র হচ্ছে-রাধা, কৃষ্ণ ও বড়াইয়ি।
  • প্রশ্নঃ   শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যগ্রন্থের কবি কে ?
  • বড়ু চন্ডীদাস।
  • প্রশ্নঃ   শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য কয় খন্ডের ?
  • ১৩ খন্ডের।
  • প্রশ্নঃ   মঙ্গলকাব্যের প্রধান শাখা কয়টি?
  • ৩টি, মনসামঙ্গল (আদি কবি কানা হরি দত্ত), চন্ডীমঙ্গল (কবি প্রশ্নঃ মানিক দত্ত), অন্নদামঙ্গল (ভারতচন্দ্র রায়)
  • প্রশ্নঃ   কালিকামঙ্গলের আদি কবি কে ?
  • কবি কঙ্কণ ।
  • প্রশ্নঃ   আরাকান বা রোসাঙ্গ রাজ সভার কবি ছিলেন ?
  • আলাওল।
  • প্রশ্নঃ   বাংলা সাহিত্যে প্রাচীনতম মুসলিম কবি কে ?
  • শাহ মুহাম্মদ সগীর (ইউসুফ জোলেখার রচয়িতা)
  • প্রশ্নঃ   পুঁথি সাহিত্যের সার্থক ও জনপ্রিয় কবি হচ্ছেন ?
  • ফকির গরীবুল্লাহ।
  • প্রশ্নঃ   মহুয়া গীতিকার রচয়িতা ?
  • মনসুর বয়াতি।
  • প্রশ্নঃ   ঠাকুরমার ঝুলি এর রচয়িতা ?
  • দক্ষিণারঞ্জন মিত্র মজুমদার।
  • প্রশ্নঃ   পৃথিবীতে কয়টি জাত মহাকাব্য আছে ?
  • ৪ টি (রামায়ণ, মহাভারত, ইলিয়াড ও ওডেসি)
  • প্রশ্নঃ   মহাভারত কোন ভাষায় লেখা, লেখক কে ?
  • সংস্কৃত ভাষায়, লেখক ব্যাসদেব।
  • প্রশ্নঃ   মহাভারত প্রথম বাংলায় অনুবাদ করেন ?
  • কবীন্দ্র পরমেশ্বর।
  • প্রশ্নঃ   রামায়ণ কার লেখা এবং প্রথম অনুবাদক কে ?
  • সংস্কৃত ভাষায় বাল্মীকির, কৃত্তিবাস ওঝার।
  • প্রশ্নঃ   “লায়লী মজনু ”কাব্যের রচয়িতা কে ?
  • দৌলত উজির বাহরাম খান।
  • প্রশ্নঃ   চন্দ্রাবতী ও পদ্মাবতী কাব্যের রচয়িতা কে ?
  • কোরেশী মাগন ঠাকুর ও পদ্মাবতী   আলাওল।
  • প্রশ্নঃ   দেওয়ানা মদীনা এর লেখক কে ?
  • মনসুর বয়াতি।
  • প্রশ্নঃ   কোন কবির মাধ্যমে মধ্যযুগের অবসান ঘটে ?
  • ভারত চন্দ্র রায় গুনাকর।
  • প্রশ্নঃ   ধর্মমঙ্গল কাব্যের আদি কবি কে ?
  • ময়ূর ভট্ট।
  • প্রশ্নঃ   কোন কবির মাধ্যমে অনুবাদ সাহিত্যের যাত্রা শুরু হয় ?
  • কবি কৃত্তিবাস।
  • প্রশ্নঃ   লোক সাহিত্যের প্রাচীনতম সৃষ্টি কী কী ?
  • ছড়া ও ধাঁধা।
  • প্রশ্নঃ   আলাওল কোন যুগের কবি?
  • মধ্যযুগের।
  • প্রশ্নঃ   মধ্যযুগের আদি নিদর্শন কোনটি ?
  • শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য
  • প্রশ্নঃ   শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের রচয়িতা কে ?
  • বড়– চÐীদাস
  • প্রশ্নঃ   শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের উল্লেখযোগ্য চরিত্রগুলো কী?
  • রাধা, কৃষ্ণ ও বড়ায়ি
  • প্রশ্নঃ        কয়েকজন মুসলিম বৈষ্ণব পদকর্তার নাম উল্লেখ কর?
  • শেখ কবির, আলাওল, সৈয়দ সুলতান, সৈয়দ আইনুদ্দিন
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *